রবিবার, ১৮ অগাস্ট ২০১৯, ০৯:৪৩ অপরাহ্ন

৩০ হাজার নিবন্ধিত বিক্রয় প্রতিনিধি নিয়ে দেশীয় ই-কমার্স “সেল্ফ শপিং” এর যাত্রা শুরু

বিশেষ প্রতিনিধি: সারাদেশে ৩০ হাজারেরও অধিক নিবন্ধিত বিক্রয় প্রতিনিধি নিয়ে সম্পূর্ন দেশীয় ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ‘সেল্ফ শপিং অনলাইন লিমিটেড’ তার আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করেছে।  শিক্ষিত বেকার জনগোষ্ঠীকে কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশি ই-কমার্স খাতকে শক্তিশালী করার মাধ্যমে ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন আরো একধাপ এগিয়ে নিয়ে যেতে চায় প্রতিষ্ঠানটি।  সেল্ফটেক গ্রুপের এই অঙ্গপ্রতিষ্ঠান বেশ কিছুদিন যাবত তাদের এই উদ্যোগকে বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে দেশব্যাপী বিক্রয় প্রতিনিধি সংগ্রহের কাজ চালিয়ে আসছিল।

কেনাকাটা করতে শপিংমলে যেতে হবে- এ ধারণা থেকে অনেক আগেই সরে এসেছে উন্নত দেশগুলোর নাগরিকরা।  তবে তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলোতে ইতোমধ্যে এ পরিবর্তনের প্রভাব পড়তে   শুরু করেছে।  বাংলাদেশও এর ব্যাতিক্রম নয়।  ব্যস্ততা, যানজট ও শপিংমলে ভিড়ের বিরক্তি এড়ানোর পাশাপাশি ভার্চুয়াল দুনিয়ায় বাহারি পণ্যের সমাহারে অনলাইনে কেনাকাটা আগের চেয়ে নতুন মাত্রা পেয়েছে।  আর তাই কয়েক বছরের ব্যবধানে দেশীয় অনলাইন বাজার বেশ জমে ওঠেছে।  প্রায় প্রতিদিনই গড়ে ওঠছে নতুন নতুন ই-কমার্স সাইট।  সে সব সাইটে বেচাকেনাও চলছে হরদম।

এত সব ই-কমার্স সাইটের মধ্যে সেল্ফ শপিং নতুন আঙ্গিকে কিছু ভিন্ন মাত্রা যোগ করতে চায় বলে জানা যায়।  দেশের বড় বড় ই-কমার্সগুলো যেখানে এখনো অনেকটা ব্যস্ততম শহরকেন্দ্রিক, সেল্ফ শপিং সেখানে ই-কমার্সের এ আধুনিক ছোঁয়াকে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল পর্যন্ত পৌছে দেয়ার উদ্যোগ নিয়েছে।   তাছাড়া দেশব্যাপী এফিলিয়েট নেটওয়ার্ক তৈরি করে তাদেরকে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে শক্তিশালী মার্কেটিং টীম গঠন করতে চায় এ প্রতিষ্ঠানটি।  এর মাধ্যমে একদিকে যেমন তৈরি হবে বেকার জনগোষ্ঠীর বিশাল কর্মসংস্থান, অন্যদিকে দ্রুত গতিতে প্রসারিত হবে  অনলাইন ভিত্তিক পণ্যের বাজার।

সেল্ফ শপিং ক্রেতা ও বিক্রয় প্রতিনিধিদের একাংশ

বর্তমানে বিভিন্ন ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান যেখানে গ্রাহক পর্যায়ে পণ্য পৌঁছে দিতে পণ্যের ধরন ও স্থানের দূরত্ব বিশেষে ডেলিভারি চার্জ হিসেবে ৫০ থেকে ১০০০ টাকা বা তারও অধিক পর্যন্ত নিয়ে থাকে, ‘সেল্ফ শপিং’ সেখানে সারাদেশের যে কোনো ঠিকানায় যে কোন পণ্য পৌঁছে দিতে ৬০ টাকার বেশি নেবে না বলে জানিয়েছে।  অনলাইনে পণ্য অর্ডার করে হুবহু পণ্য গ্রহকপর্যায়ে পৌঁছে দেয়ার নিশ্চয়তায় ১০০% মানিব্যাক গ্যারান্টি দিচ্ছে কোম্পানিটি ।

‘সেল্ফ শপিং’-এর কর্মকর্তারা জানান, শহরের পাশাপাশি  গ্রামীন জনপদেও ই-কমার্সের সেবা পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে কাজ করবে তারা।  তাছাড়া বিশ্বের জনপ্রিয় ও বৃহৎ ই-কমার্স সাইট অ্যামাজন, আলিবাবা’র মতো গুণগত মানসম্পন্ন লাখো পণ্যসমৃদ্ধ কোনো অনলাইন শপও আমাদের দেশে নেই।  সে চাহিদাও পূরণ করবে বৃহ্ৎ দেশীয়  ই-কমার্স হতে চলা এই প্রতিষ্ঠানটি।

জানা গেছে, সি টু সি বিজনেস মডেলে পণ্যের ভেন্ডর এবং ভোক্তাদের মধ্যে সেল্ফ শপিং একটি টেকসই নেটওয়ার্ক গড়ে তুলবে।  যে কোনো আমদানিকারক বা উৎপাদক প্রতিষ্ঠান কিংবা পাইকারি বিক্রেতা এ প্রতিষ্ঠানের সাথে ভেন্ডর চুক্তি সম্পাদন করে তাদের পণ্য ‘সেল্ফ শপিং’ সাইটে প্রদর্শন করিয়ে লক্ষ লক্ষ ক্রেতার চাহিদা যোগান দিতে পারবেন।

সরেজমিনে দেখা যায়, কোম্পানিটি ইতোমধ্যেই আরজেএসসি সার্টিফিকেটসহ সকল সরকারি অনুমোদন লাভ করেছে।  সেল্ফ শপিংয়ের রয়েছে চট্টগ্রাম নগরের গোলপাহাড় মোড়ে অবস্থিত ইমপাল্স সিটি সেন্টারের ৬ষ্ট তলায় সুবিশাল কর্পোরেট কার্যালয়।  তাদের নথিপত্রে রয়েছে ৩০ হাজারেরও অধিক নিবন্ধিত বিক্রয় প্রতিনিধি।

সেল্ফ শপিং ক্রেতা ও বিক্রয় প্রতিনিধিদের একাংশ

এখানে গ্রাহক পণ্য অর্ডার করতে কোম্পানির ভেরিফাইড বিকাশ মার্চেন্ট নাম্বার কিংবা বাংলাদেশ ব্যাংক অনুমোদিত পেমেন্ট গেটওয়ে ব্যবহার করে মূল্য পরিশোধ করতে পারবেন।  তবে অন্যান্য ই-কমার্সের মতো ক্যাশ অন ডেলিভারি (কড) পদ্ধতিতে মূল্য পরিশোধের ব্যবস্থা রাখা হয়নি।  কারণ হিসেবে ক্যাশ অন ডেলিভারির দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে অধিকাংশ ক্ষেত্রে অসাধু ব্যক্তি দ্বারা ই-কমার্স কর্তৃপক্ষ হয়রানির শিকার হচ্ছে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।

সরকারি নীতির আলোকে এ প্রতিষ্ঠানের গৃহীত অর্থনৈতিক পলিসি স্বচ্ছতার সাথে স্বাচ্ছন্দ্যে এগিয়ে যাবে বলে অভিমত দিয়েছেন আর্থিক পলিসি বিশেষজ্ঞরা।  তারা বলেন এই পদ্ধতিতে দ্রুত জনপ্রিয়তা অর্জন করবে ‘সেল্ফ শপিং’।

সেল্ফটেক গ্রুপের চেয়ারম্যান শাহাদাত হোসাইন শাহীন স্বদেশ টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “অনলাইন গ্রাহকদের মাঝে কম দামে পণ্য কেনার ঝোঁক-প্রবণতা বেশি।  এতে বিভিন্ন অসাধু অনলাইন বিক্রেতা তাদেরকে কমদামে মানহীন পণ্য ধরিয়ে দিচ্ছে।  ফলে অনেক ক্রেতা প্রতারিত হয়ে অনলাইন কেনাকাটার প্রতি আগ্রহ হারিয়ে ফেলছেন।  আমরা সে বিশ্বাস ও আগ্রহ ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে কাজ করবো।  গ্রাহকদের বাজার দর থেকে হ্রাসকৃত মুল্যে পণ্য দেওয়ার ব্যবস্থা করবো।  তবে পণ্যের কম মুল্যের চেয়ে মান নিয়ন্ত্রণ আমাদের কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ।  অর্ডারকৃত পণ্য সঠিক এবং হুবহু গ্রাহককে বুঝিয়ে দিতে আমরা বদ্ধপরিকর।  গ্রাহক সঠিক পণ্য না পেলে ১০০% মানিব্যাক গ্যারান্টির ব্যবস্থা রেখেছি। ”

 

তিনি আরো বলেন, “সেল্ফ শপিং এর কর্মপরিকল্পনায় হাজারো তরুণের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হচ্ছে।  রাষ্ট্রের প্রতি দায়িত্ববোধ ও প্রধানমন্ত্রীর ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার ইচ্ছাকে সামনে রেখেই আমরা কাজ করছি” সেল্ফ শপিং বাংলাদেশে  অতি দ্রুত গ্রাহক জনপ্রিয়তা অর্জন করবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

 

সেল্ফ শপিং এর ওয়েবসাইট:- www.self-shopping.com

স্বদেশ টুয়েন্টিফোর//এবিএম


পোস্ট টি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

স্পন্সরড নিউজ

সম্পাদক:
আসিফ সিরাজ

প্রকাশক:
এইচ এম শাহীন
চট্টগ্রাম অফিসঃ
এম বি কমপ্লেক্স (৩য় তলা), ৯০ হাই লেভেল রোড, ওয়াসা মোড়, চট্টগ্রাম।

যোগাযোগঃ
বার্তা কক্ষঃ ০১৮১৫৫২৩০২৫
মেইলঃ news.shodesh24@gmail.com
বিজ্ঞাপনঃ ০১৭২৪৯৮৮৩৯৯
মেইলঃ ads.shodesh24@gmail.com
কপিরাইট © ২০১৮ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | স্বদেশ২৪.কম
সেল্ফটেক গ্রুপের একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান।