মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯, ০৭:৪১ পূর্বাহ্ন

এবার ভারতের নিশানায় দাউদ ও তার ডি-কোম্পানি

ডেস্ক : মাসুদ আজহারের পর এবার দাউদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে উঠে পড়ে লাগল ভারত সরকার। বলা হয়, পাকিস্তানের মদদপুষ্ট হয়ে দাউদ ইব্রাহিম ও তার ডি-কোম্পানি নানারকম সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছে। তাই এবার জাতিসংঘে এর বিরুদ্ধে সোচ্চার হল ভারত।

জাতিসংঘে ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি সৈয়দ আকবরউদ্দিন। তিনি ভারতীয় উপমহাদেশ ও দক্ষিণ এশিয়ায় সবচেয়ে বড় বিপদ হিসেবে চিহ্ণিত করেছেন দাউদ ইব্রাহিমের ডি-কোম্পানিকে। তার মতে, ডি-কোম্পানি, লস্কর-ই-তইবা, জইশ-ই-মহম্মদ গোটা ভারতীয় উপমহাদেশে সন্ত্রাস ছড়াচ্ছে। মানুষ পাচার, মাদক পাচারের মাধ্যমে এরা বিপুল অর্থ সংগ্রহ করছে। একটা আন্ডারওয়ার্ল্ড অপরাধীদের সিন্ডিকেট থেকে সন্ত্রাসবাদীদের বিশাল নেটওয়ার্কে পরিণত হয়েছে ডি-কোম্পানি। তিনি জাতিসংঘের সব সদস্য দেশের কাছে আবেদন জানিয়েছেন, দাউদ ইব্রাহিমকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী হিসাবে ঘোষণা এবং ডি কোম্পানির বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করার।

আকবরউদ্দিন জোরালোভাবে বলেছেন, দাউদের কাজকর্ম নিয়ে এফবিআই, ইন্টারপোল সব জানে। কিন্তু বিশ্বজুড়ে এদের কাজকর্ম নিয়ে অনেক দেশের সরকারই অন্ধকারে।

নিরাপদ আশ্রয় থেকে এই কারবার দাউদ চালায়। একইসঙ্গে ভারতে সন্ত্রাসও রপ্তানি করে। সন্ত্রাস ছড়িয়ে দিতে নিজের ডি-কোম্পানির সিন্ডিকেটকেই ব্যবহার করে দাউদ।

আকবরউদ্দিন যুক্তি তুলে ধরে বলেন, যদি নিরাপত্তা পরিষদ এবং রাষ্ট্রসংঘ যৌথভাবে ইসলামিক স্টেটের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারে এবং ইসলামিক স্টেটকে শায়েস্তা করতে পারে তাহলে ডি-কোম্পানির বিরুদ্ধেও নিতে পারবে।তিনি এক্ষেত্রে ১২৬৭ নম্বর কমিটির সাহায্য নিয়ে ব্যবস্থা নিতে বলেছেন।

উল্লেখ্য, ১২৬৭ নম্বর কমিটির সুপারিশ মেনেই জইশ-ই-মহম্মদের প্রধান ও পুলওয়ামা কাণ্ডের মাস্টারমাইন্ড মাসুদ আজহারের বিরুদ্ধে চরম ব্যবস্থা নিয়েছে জাতিসংঘ। মাসুদকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী হিসাবে ঘোষণা করার ক্ষেত্রে বড় সাফল্য পায় ভারত। আর্থিক ও রাজনৈতিকভাবে কোণঠাসা করে ফেলা হয় মাসুদ ও জইশকে। পাকিস্তানেও মাসুদের গতিবিধি অতি নিয়ন্ত্রিত হয়ে পড়ে। আন্তর্জাতিক চাপে পড়ে মাসুদ ও হাফিজ সইদের বিরুদ্ধে বেশ কিছু কঠোর পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হয় পাকিস্তান।

রাজনৈতিক মহলের ব্যাখ্যা, খুব অঙ্ক কষেই মোদি-অমিত শাহ জুটি দাউদের প্রসঙ্গ জাতিসংঘে উত্থাপন করেছে। কারণ ট্রাম্পের সঙ্গে ইমরান খানের বৈঠক আসন্ন।

২১ জুলাই অবধারিতভাবে ইমরানের সঙ্গে বৈঠকে উঠবে সন্ত্রাসবাদ প্রসঙ্গ। ট্রাম্প তখনই ইমরানকে আরও বিশ্বাসযোগ্য পদক্ষেপ গ্রহণ করতে বলবেন। ইমরানের উপর চাপ দেবেন। ভারতের হয়ে তুলতে পারেন দাউদ এবং হাফিজের নামও।

আর একটি ব্যাপার, ফাইনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স (এফএটিএফ)- এর বিশাল চাপ রয়েছে পাকিস্তানের উপর। তারা পাকিস্তানকে যে কোনও সময় কালো তালিকাভুক্ত করতে পারে। বিশেষত: সন্ত্রাসে মদদ বিষয়েই তাদের ক্ষোভটা বেশি।এই সুযোগ কাজে লাগিয়েই দাউদ প্রসঙ্গ তুলে পাকিস্তানের উপর চাপটা  বাড়িয়ে রাখল ভারত।প্রথম চাল’টা দিয়ে এবার প্রতিপক্ষের থেকে স্পষ্টতই এগিয়ে গেল। সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন।

স্বদেশ টুয়েন্টিফোর//জেডসি

 


পোস্ট টি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

স্পন্সরড নিউজ

সম্পাদক:
আসিফ সিরাজ

প্রকাশক:
এইচ এম শাহীন
চট্টগ্রাম অফিসঃ
এম বি কমপ্লেক্স (৩য় তলা), ৯০ হাই লেভেল রোড, ওয়াসা মোড়, চট্টগ্রাম।

যোগাযোগঃ
বার্তা কক্ষঃ ০১৮১৫৫২৩০২৫
মেইলঃ news.shodesh24@gmail.com
বিজ্ঞাপনঃ ০১৭২৪৯৮৮৩৯৯
মেইলঃ ads.shodesh24@gmail.com
কপিরাইট © ২০১৮ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | স্বদেশ২৪.কম
সেল্ফটেক গ্রুপের একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান।