মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯, ০৭:১৯ পূর্বাহ্ন

ক্যাম্পে দুর্ভোগে হজযাত্রীরা

ঢাকা : হজ ব্যবস্থাপনা উন্নত হলেও বাড়েনি আশকোনা হজ ক্যাম্পের ধারণ ক্ষমতা ও আনুষঙ্গিক সুযোগ সুবিধা। সৌদি আরবের আগাম ইমিগ্রেশন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্নের জন্য দূরের হাজিদের ২ থেকে ৩ দিন আগেই হজ ক্যাম্পে রিপোর্ট করতে হচ্ছে।

কিন্তু ডরমিটরিতে থাকার পর্যাপ্ত সিট ও প্রয়োজনীয় টয়লেট সুবিধা না থাকায় প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে আসা হজযাত্রীদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। ক্যাম্পের রেস্তোরাঁয় খাবারের বাড়তি দাম নেয়ারও অভিযোগ হাজিদের।

হাজিদের দুর্ভোগ কমাতে প্রতিবছরই নেওয়া হচ্ছে নানা উদ্যোগ। অনলাইন ভিসা দেওয়া ও প্রথমবারের মতো সৌদি অংশের আগাম ইমিগ্রেশন হচ্ছে ঢাকায়। তবে সময়ের সাথে হজযাত্রীর সংখ্যা কয়েকগুণ বাড়লেও সে অনুপাতে বাড়েনি হজ ক্যাম্পের সুবিধা।

এদিকে অঞ্চলভিত্তিক মুয়াল্লেম বা গাইড নিয়োগ না হওয়ায় প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে আসা হাজিরা বিপাকে পড়েছেন। পাচ্ছেন না প্রয়োজনীয় সেবা। রেস্তোরাঁয় খাবারের মান ও দাম নিয়েও রয়েছে অভিযোগ। সইতে হচ্ছে মশার কামড়ও।

এদিকে হজযাত্রীরা যেন দুর্ভোগে না পড়েন সেজন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ। তবে সৌদি আরবে পৌঁছার পর অনেক কিছু সে দেশের সরকারের ওপর নির্ভর করে। তাই উদ্যোগ নেয়ার পরও কিছু সমস্যা সমাধান করা সম্ভব হয় না।

শনিবার (৬ জুলাই) সকালে আশকোনা হজ ক্যাম্প পরিদর্শনে এসে তিনি এ কথা বলেন। এখন পর্যন্ত প্রায় চার হাজার হাজি নিয়ে ৯টি ফ্লাইট ঢাকা ছেড়ে গেছে।

হজ ক্যাম্পের পরিচালক মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, এই হজ ক্যাম্প যখন শুরু করা হয় তখন মাত্র ১০ হাজার মানুষের কথা মাথায় রেখে শুরু করা হয়েছিল। এখন মানুষ বেশি হওয়ায় সবকিছুতেই চাপ একটু বেশি পড়ছে। হজযাত্রীদের সর্বোচ্চ সুবিধা দিতে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

হজ ক্যাম্পে দেড় হাজার হাজি থাকার ব্যবস্থা থাকলেও পুরুষ ও মহিলা ডরমিটরি মিলিয়ে বর্তমানে অবস্থান করছেন তিন হাজার হজযাত্রী। ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন যাত্রীর মধ্যে আগাম ইমিগ্রেশন হবে ৬০ হাজার হজযাত্রীর।

হজযাত্রার তৃতীয় দিনে ১৬টি ফ্লাইট হাজিদের নিয়ে ঢাকা ছাড়ার কথা রয়েছে। শনিবার সকাল থেকে বিড়ম্বনামুক্তই যাত্রা করতে পেরেছেন হাজিরা। হাবের মহাসচিব জানান, এখনো পর্যন্ত ৮ হাজারের মতো যাত্রী সৌদি আরব পৌঁছেছেন। এরমধ্যে সৌদি অংশের আগাম ইমিগ্রেশন হয়েছে ৪ হাজার ১৯০ জনের।

হাবের মহাসচিব শাহাদাত হোসাইন তসলিম বলেন, এ বছর হজ যাত্রার শুরুটা ভালো হয়েছে, শেষ পর্যন্ত এভাবেই চলবে বলে আমি মনে করি। কোনো এজেন্সির কারণে কেউ বিড়ম্বনায় পড়লে তাকে কঠোর শাস্তির আওতায় আনা হবে।

৫ আগস্ট পর্যন্ত বিমানের ১৮৯ টি ফ্লাইট প্রায় ১ লাখ ২৭ হাজার হজ যাত্রীকে পরিবহন করবে।

স্বদেশ টুয়েন্টিফোর//জেসি/এমএমআর


পোস্ট টি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

স্পন্সরড নিউজ

সম্পাদক:
আসিফ সিরাজ

প্রকাশক:
এইচ এম শাহীন
চট্টগ্রাম অফিসঃ
এম বি কমপ্লেক্স (৩য় তলা), ৯০ হাই লেভেল রোড, ওয়াসা মোড়, চট্টগ্রাম।

যোগাযোগঃ
বার্তা কক্ষঃ ০১৮১৫৫২৩০২৫
মেইলঃ news.shodesh24@gmail.com
বিজ্ঞাপনঃ ০১৭২৪৯৮৮৩৯৯
মেইলঃ ads.shodesh24@gmail.com
কপিরাইট © ২০১৮ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | স্বদেশ২৪.কম
সেল্ফটেক গ্রুপের একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান।