সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ১২:০৬ অপরাহ্ন

ট্রেনের টিকেট বিক্রি: ধীরগতির কৌশল

চট্টগ্রাম: বাহন হিসেবে ট্রেন যতোটা দ্রুতগামী, রেলস্টেশনে এর টিকেট বিক্রি ততোটায় উল্টো বা ধীরগতির!  ঈদের ট্রেনের আগাম টিকেট বিক্রির চতুর্থ দিন আজ শনিবার (২৫ মে) সকাল থেকেই ধীরগতির অভিযোগ তুলেছেন টিকেট প্রত্যাশীরা। কাঙ্ক্ষিত টিকেটের জন্য শুক্রবার রাত থেকেই বৃষ্টি উপেক্ষা করে  চট্টগ্রাম রেলস্টেশনে আসেন কয়েকশ মানুষ।

বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভিড় আরও বাড়তে থাকে। শনিবার দেওয়া হয় ৩ জুনের টিকেট। স্টেশন ম্যানেজার আবুল কালাম আজাদ জানান, শনিবার সকাল ৯টা থেকে বিকাল চারটা পর্যন্ত দশটি কাউন্টারে টিকেট দেওয়া হয়। এদিন কাউন্টারে প্রায় পাঁচহাজার এবং অ্যাপসে প্রায় আড়াই হাজার টিকেট বিক্রির জন্য বরাদ্দ রাখা হয়। অ্যাপসে দেওয়া কিছু টিকেট অবিক্রিত থাকলেও কাউন্টারে রাখা অধিকাংশ টিকেট বিক্রি হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।

এদিকে কাঙ্ক্ষিত টিকেট না পাওয়া কিছু যাত্রী অভিযোগ দিতে গিয়ে উল্টো স্টেশন ম্যানেজারের দুর্ব্যবহারের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ভুক্তভোগীদের পক্ষে কথা বলায় মহানগর কৃষক লীগের সভাপতি আলমগীর হোসেনের দিকে তেড়ে যান স্টেশন ম্যানেজার আবুল কালাম আজাদ।

বিষয়টি স্বীকার করে আলমগীর হোসেন জানান, শনিবার বেলা দেড়টার দিকে বিপুল সংখ্যক যাত্রী আগাম টিকেট না পেয়ে স্টেশন ম্যানেজারের কাছে যান। এসময় রেলওয়ের কিছু লোক কালোবাজাকীদের হাতে টিকেট দিয়ে দেয়ায় তারা কাঙ্ক্ষিত টিকেট পাননি বলে ম্যানেজারের কাছে অভিযোগ করেন।

‘এসময় আমি ভুক্তভোগীদের পক্ষে কথা বললে আমার দিকে তেড়ে আসেন স্টেশন ম্যানেজার আবুল কালাম আজাদ। কালোবাজারীদের হাতে দিয়ে দেয়ায় শনিবার বেলা ১২টার মধ্যেই কাউন্টারে সব আগাম টিকেট শেষ হয়ে যায়’ বলেন, আলমগীর হোসেন।
তবে যাত্রীদের এবং মহানগর কৃষকলীগ নেতা আলমগীর হোসেনের সাথে অশোভন করার কথা আস্বীকার করেছেন স্টেশন ম্যানেজার আবুল কালাম আজাদ।

টিকেট প্রত্যাশীরা বলছেন, সকালে আরও দুই ঘণ্টা আগে টিকেট বিক্রি শুরু করা গেলে এবং কালোবাজারীদের সাথে রেলের কতিপয় কর্মকর্তাদের আঁতাত বন্ধ করলে মানুষের ভোগান্তি কম হতো। পাশাপাশি অতিরিক্ত চাপের বিষয়টি মাথায় রেখে বাড়তি কাউন্টার খোলারও দরকার ছিল।

এছাড়া প্রতিদিন যে টিকেটগুলো অবিক্রিত থেকে যায়, কালোবাজারী বন্ধে সেসব টিকেট প্রদর্শনের ব্যবস্থার দাবিও জানান তারা। অন্যদিকে নারী যাত্রীরা অভিযোগ করেন, কাউন্টার কম হওয়ায় তাদের দীর্ঘসময় লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হচ্ছে। অনলাইনে টিকেট না পাওয়ার কারণেই ভোগান্তি বেড়েছে বলে জানান টিকেট প্রত্যাশীরা।

স্টেশনমাস্টার নিজাম উদ্দিন বলেন, সীমিত টিকেট সবাই পাবে না এটাই স্বাভাবিক। সীমিত টিকেটের বিপরীতে কাউন্টারের সামনে শত শত লোক দাঁড়াচ্ছে। অপরদিকে অ্যাপসে সীমিত টিকেট বিক্রি করা হচ্ছে। কিন্তু ওই সীমিত টিকেটের বিপরীতে হাজার হাজার লোক অ্যাপসটিতে হিট করছে। কাউন্টারে সীমিত টিকেট বিক্রি হয়ে গেলে করার তো কিছু নেই।

স্বদেশ টুয়েন্টিফোর//এমএফ/পিএফ

 


পোস্ট টি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

স্পন্সরড নিউজ

সম্পাদক:
আসিফ সিরাজ

প্রকাশক:
এইচ এম শাহীন
চট্টগ্রাম অফিসঃ
এম বি কমপ্লেক্স (৩য় তলা), ৯০ হাই লেভেল রোড, ওয়াসা মোড়, চট্টগ্রাম।

যোগাযোগঃ
বার্তা কক্ষঃ ০১৮১৫৫২৩০২৫
মেইলঃ news.shodesh24@gmail.com
বিজ্ঞাপনঃ ০১৭২৪৯৮৮৩৯৯
মেইলঃ ads.shodesh24@gmail.com
কপিরাইট © ২০১৮ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | স্বদেশ২৪.কম
সেল্ফটেক গ্রুপের একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান।