বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০১৯, ০৫:৪৭ পূর্বাহ্ন

লাইভস্ট্রিমিং : কঠোর নীতি অনুসরণ করবে ফেসবুক

ডেস্ক : লাইভস্ট্রিমিং সংক্রান্ত নিয়মাবলী কঠোর করছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক।নিউ জিল্যান্ডের মসজিদে বন্দুকধারীর হামলার পর তুমুল সমালোচনার মুখে মঙ্গলবার (১৫ মে) কোম্পানিটি এ ঘোষণা দিয়েছে। অনলাইন সহিংসতা ঠেকানোর প্রশ্নে বিশ্বনেতারা যখন বৈঠকে বসতে যাচ্ছেন তখনই কড়া নীতি আরোপের কথা জানালো ফেসবুক। ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স-এর প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

মার্চের মাঝামাঝি সময়ে ২৮ বছর বয়সী অস্ট্রেলীয় নাগরিক ব্রেন্টন ট্যারান্ট নামের সন্দেহভাজন হামলাকারীর লক্ষ্যবস্তু হয় নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের দুটি মসজিদ। তাণ্ডবের বলি হয় অর্ধশত মানুষ। হামলাটি বিশ্ববাসীর সামনে নতুন এক বাস্তবতা হাজির করে। প্রথমবারের মতো একটি হামলার লাইভ ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রচার করা হয় এবং তা ভাইরাল হয়ে যায়। এতে আবারও সামনে আসে জঙ্গিবাদী কর্মকাণ্ডে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ভূমিকার প্রশ্ন। ঘটনার পর এক সংবাদ সম্মেলনে নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডার্ন জানান, তিনি ফেসবুকের সঙ্গে আলোচনায় আগ্রহী। তিনি বলেন, ‘যেসব প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে ভিডিওগুলো ছড়িয়েছে শেষপর্যন্ত তাদেরই দায় এগুলো সরানোর। আমি মনে করি তাদেরকে আরও কিছু প্রশ্নের জবাব দিতে হবে।’

ঘটনার দুই মাসের মাথায় মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে ফেসবুক জানিয়েছে, তারা লাইভস্ট্রিমিং ব্যবহারের ক্ষেত্রে গ্রাহকদের জন্য ‘ওয়ান-স্ট্রাইক’ নীতি প্রণয়ন করছে। এর আওতায় কোনও গ্রাহক যদি সাইটের যে কোনও জায়গায় কোম্পানিটির গুরুত্বপূর্ণ নীতি ভঙ্গ করে এবং শাস্তির আওতায় থাকে তবে সে গ্রাহকের জন্য ফেসবুক লাইভ ব্যবহারের সুযোগ সাময়িকভাবে নিষিদ্ধ থাকবে। প্রথমদফায় অপরাধ সংঘটনকারীদেরকে নির্দিষ্ট সময়ের জন্য লাইভ ব্যবহার করতে দেওয়া হবে না।

ওয়ান স্ট্রাইক নীতির আওতায় অপরাধ বিবেচনার আওতাও বাড়াচ্ছে ফেসবুক। তবে নীতিমালার আওতায় কোন কোন অপরাধগুলোকে আমলে নেওয়া হবে এবং কত সময় ধরে অপরাধের সাজা বজায় থাকবে সে ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট করে কিছু বলেনি ফেসবুক। কোম্পানিটির এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, নতুন নিয়মের আওতায় কোনও বন্দুকধারীর পক্ষে তার অ্যাকাউন্ট থেকে লাইভ স্ট্রিমিং ব্যবহার করা সম্ভব হবে না।

ফেসবুক বলছে, ভবিষ্যতে সাইটের অন্যান্য ক্ষেত্রগুলোতে কড়াকড়ি বিস্তৃত করার কথা ভাবা হচ্ছে।ফেসবুকের নতুন এ সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডার্ন। তিনি মনে করেন, ‘ক্রাইস্টচার্চ কল’ নামক উদ্যোগে সাড়া দিয়েছে ফেসবুক। নিউজিল্যান্ডের মসজিদে হামলার পর অনলাইন সহিংসতা রুখতে ‘ক্রাইস্টচার্চ কল’ নামক ওই উদ্যোগ শুরু করেছিলেন জাসিন্ডা।অনলাইনে সন্ত্রাসী ও সহিংসতামূলক কনটেন্ট নিয়ন্ত্রণে এ পরিকল্পনা হাতে নেন তিনি।

ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ’র অনুপস্থিতিতেই বুধবার (১৫ মে) প্যারিসে ৭ দেশের মন্ত্রিপর্যায়ের প্রযুক্তি বিষয়ক এক সম্মেলনে যোগ দেবে গুগল, ফেসবুক, মাইক্রোসফট ও টুইটারের কর্মকর্তারা। সেখানেই পরিকল্পনার বিস্তারিত তুলে ধরবেন জাসিন্ডা।

স্বদেশ টুয়েন্টিফোর//বাজা/জেসি


পোস্ট টি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

স্পন্সরড নিউজ

সম্পাদক:
আসিফ সিরাজ

প্রকাশক:
এইচ এম শাহীন
চট্টগ্রাম অফিসঃ
এম বি কমপ্লেক্স (৩য় তলা), ৯০ হাই লেভেল রোড, ওয়াসা মোড়, চট্টগ্রাম।

যোগাযোগঃ
বার্তা কক্ষঃ ০১৮১৫৫২৩০২৫
মেইলঃ news.shodesh24@gmail.com
বিজ্ঞাপনঃ ০১৭২৪৯৮৮৩৯৯
মেইলঃ ads.shodesh24@gmail.com
কপিরাইট © ২০১৮ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | স্বদেশ২৪.কম
সেল্ফটেক গ্রুপের একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান।