শনিবার, ২৪ অগাস্ট ২০১৯, ০৯:৫৬ অপরাহ্ন

প্রিন্স রেস্তোরাঁর শাটার ভেঙ্গে বের করা হল ক্রেতাদের

ঢাকা:  রাজধানীর ফার্মগেট এলাকায় ঢাকা মহানগর পুলিশের ভেজালবিরোধী ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান চালাচ্ছে- এই খবর পেয়ে ইন্দিরা রোডের প্রিন্স রেস্তোরাঁর মালিক দ্রুত শাটার নামিয়ে বাইরে থেকে তালা ঝুলিয়ে দেয়।

এদিকে দুইটি হোটেলে অভিযান শেষ করে প্রিন্স রেস্তোরাঁর সামনে এলে বাইরে থেকে তালা লাগানো দেখে খটকা লাগে অভিযানে অংশ নেওয়া কর্মকর্তাদের। কৌতুহলে ম্যাজিস্ট্রেট শাটারের ফাঁক গলে ভেতরে দেখার চেষ্টা করলেন।

দেখে বুঝতে পারলেন রেস্তোরাঁর ভেতরে মানুষ রয়েছে।সন্দেহ বাড়ায় তিনি বাইরে থেকে শাটার খোলার অনুরোধ জানান। কোনো সাড়া-শব্দ না পেয়ে তালা ভাঙার নির্দেশ দিলেন ম্যাজিস্ট্রেট।

তালা ভেঙে শাটার খুললে সবার চোখ কপালে ওঠার মতো অবস্থা! ভ্রাম্যমাণ আদালতের চোখ ফাঁকি দিতে অন্তত ৫০ জন ক্রেতাকে ভেতরে রেখেই বাইরে থেকে তালা ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছিলো।

আজ রোববার (১২ মে) দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লাহ আল মামুনের নেতৃত্বে ডিএমপির গোয়েন্দা বিভাগ (ডিবি) ও ক্রাইম বিভাগের সমন্বয়ে অভিযান চালানোর সময় এ ঘটনা ঘটে।

রেস্তোরাঁর শাটার বন্ধ করে দিলেও কাস্টমারদের নিশ্চুপ থাকার কারণ কি ছিলো? বাইরে থেকে ডাকাডাকি করলেও তারা কেন সাড়া দেননি? এ ক্ষেত্রেও চালাকির আশ্রয় নিয়েছিলো রেস্তোরাঁ কর্তৃপক্ষ।

‘বাইরে প্রচণ্ড মারামারি হচ্ছে’ এই কথা বলে হঠাৎ করেই হোটেলের কর্মীরা শাটার নামিয়ে দিলো, এমনই জানালেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ক্রেতা । এ কারণে কাস্টমাররা ভয়ে চুপ ছিল।

এ সময় ম্যাজিস্ট্রেট রেস্তোরাঁর ম্যানেজারের খোঁজ করলে তিনি সেখানে নাই বলে জানান ক্যাশিয়ার সুমন। শাটার বন্ধ করে দেওয়ার কারণ জানতে চাইলে সুমন জানান, রমজানের পবিত্রতা রক্ষার্থে ৫টার আগে হোটেল খুলি না আমরা।

তাহলে ভেতরে এতো কাস্টমার এলো কি করে, তার কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি তিনি। তবে একপর্যায়ে শাটার বন্ধ করতে সুমন নির্দেশ দিয়েছিলেন বলে স্বীকার করেন।

এরপর সব ক্রেতাদের বাইরে বের করে দিয়ে নিয়মিত অভিযান শুরু করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় রেস্তোরাঁর ফ্রিজে বাসি-পচা খাবার সংরক্ষণসহ কাঁচা মাছ-মাংস ও রান্না খাবার একইসঙ্গে সংরক্ষণ করতে দেখা যায়। এছাড়া রান্না ঘরে অস্বাস্থ্যকর নোংরা পরিবেশও দেখা গেছে।

সবশেষে রেস্তোরাঁ ব্যবসা পরিচালনার লাইসেন্স দেখতে চাইলে কর্তৃপক্ষ তা দেখাতে ব্যর্থ হয়। কাজে অসহযোগিতাসহ এসব অপরাধে ক্যাশিয়ার সুমনকে আটক করে দেড় লাখ টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

এর আগে শুরুতে ফার্মগেট এলাকার কস্তুরি ও নিউ স্টার রেস্তোরাঁয় অভিযান চালানো হয়। এ সময় পচা-বাসি খাবার সংরক্ষণ ও স্বাস্থ্য সম্মত তেল-লবণ ব্যবহার না করার দায়ে কস্তুরি হোটেলকে ৫০ হাজার ও নিউ স্টারকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ভেজালবিরোধী নিয়মিত অভিযানের অংশ হিসেবে ফার্মগেট এলাকায় আমাদের অভিযান চলছিলো। এ খবর পেয়ে প্রিন্স রেস্তোরাঁ শাটারে তালা ঝুলিয়ে দেয়। পরে তালা ভেঙে ভেতরে ঢুকে দেখা যায়, তারা অনেক মানুষকে অবরুদ্ধ করে রেখেছিলো।

তিনি বলেন, আজ মোট তিনটি হোটেলে অভিযান চালিয়ে বেশকিছু ত্রুটি পাওয়া গেছে। এসব অপরাধে তিনটি হোটেলকে মোট ২ লাখ ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ডিএমপির এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

স্বদেশ টুয়েন্টিফোর//আরএম

 


পোস্ট টি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

স্পন্সরড নিউজ

সম্পাদক:
আসিফ সিরাজ

প্রকাশক:
এইচ এম শাহীন
চট্টগ্রাম অফিসঃ
এম বি কমপ্লেক্স (৩য় তলা), ৯০ হাই লেভেল রোড, ওয়াসা মোড়, চট্টগ্রাম।

যোগাযোগঃ
বার্তা কক্ষঃ ০১৮১৫৫২৩০২৫
মেইলঃ news.shodesh24@gmail.com
বিজ্ঞাপনঃ ০১৭২৪৯৮৮৩৯৯
মেইলঃ ads.shodesh24@gmail.com
কপিরাইট © ২০১৮ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | স্বদেশ২৪.কম
সেল্ফটেক গ্রুপের একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান।