শিরোনাম
ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী ছয় মাসের অ’ন্তঃসত্ত্বা, সন্তানের বাবা কলেজ ছাত্র আটক এবার মোবাইল নম্বরে কথা বলা যাবে ফেসবুক দিয়ে! ধর্ষণে ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা, দাদা কারাগারে ফোনে মিসড কল আসায় স্ত্রীকে গাছে বেঁধে গরম লোহার ছ্যাঁকা এত মেয়ের সঙ্গে সম্পর্ক ছিল যে গুনে শেষ করা যাবে না: নোবেল টাঙ্গাইলের যৌনপল্লী রূপ নিয়েছে ভুতুড়ে নগরীতে: যৌনকর্মীরা কষ্টে দিন পার করছে তারা জোর পূর্বক আমাকে বিয়ে দিয়েছে, আপত্তিকর অবস্থায় কেউ পায়নি: ভাইস-চেয়ারম্যান ফারহানা ইয়াসমিন কেন ভুঁড়িওয়ালা পুরুষকেই বেশি বিশ্বাস করেন নারীরা? টয়লেটে পড়ে যাওয়া মোবাইল তুলতে গিয়ে মা-ছেলের মৃত্যু ঝাড়ফুঁকের নামে প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণ করল কবিরাজ

শনিবার, ৩০ মে ২০২০, ০৯:৫৩ অপরাহ্ন

সিন্ডিকেট ভাঙতে সুষ্ঠু বাজার ব্যবস্থাপনা সময়ের দাবি

দেশের বাজারে পেঁয়াজের ঝাঁজ যে সর্বকালের সব রেকর্ড ভেঙেছে সেটা আর নতুন করে বলার অপেক্ষা রাখে না। হাঁটি হাঁটি পা পা করে শীত মৌসুম চলে এসেছে, অথচ সবজির বাজারে আম জনতার জন্য এখনো পর্যন্ত কোন সূখের বারতা নেই।
চালের বাজারও অস্থিতিশীল, কোথাও যেন স্বস্তি নেই। মাঝখানে গুজবের ডালপালা ছড়িয়ে লবণ মূল্য বৃদ্ধির তালিকায় জায়গা করে নিতে চেয়েছিল। সরকার এবং প্রশাসন যন্ত্রের কঠোর পদক্ষেপের ফলে সে অপচেষ্টা ভেস্তে যায়।

এই মুহূর্তে দেশে রাজনৈতিক অস্থিরতা বা উত্তাপ মোটেও নেই বলা যায়। এরপরেও সব শ্রেণি পেশার ভোক্তাদের জন্য কোন সুখবর নেই। নিত্য প্রয়োজনীয় কোন পণ্য-সামগ্রির দাম কমেছে তেমন সংবাদ খুঁজে পাওয়া দুষ্কর।

কিন্ত কেন এমনটা হচ্ছে ? প্রশাসন যন্ত্র এই বিষয়গুলো নিয়ে দৌঁড়ঝাপ কম করছে না ! একের পর এক অভিযান চালানো হচ্ছে, জরিমানা করা হচ্ছে। কিন্ত কোন কিছুতেই মূল্য বৃদ্ধির এই রাশ টেনে পরিস্থিতি সামাল দেয়া যাচ্ছে না। অভিযানগুলো যেন অদৃশ্য হাতের কারসাজিতে ব্যর্থতায় পর্যবসিত হচ্ছে। অনেকগুলো “কেন”-র উত্তর পাওয়া যাচ্ছে না।

পণ্য-সামগ্রির মূল্য বৃদ্ধির অজুহাতেরও যেন শেষ নেই! প্রতিবেশী ভারত বাংলাদেশে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেয়। এর পরপরই স্বাদের পেঁয়াজ জমিন ছেড়ে আসমান ছুঁয়েছে। যদিও তার কিছুদিন আগে থেকেই দেশের বাজারে পেঁয়াজের দর চড়া ছিল। ভারতীয় ঘোষণা আসার পর যেন সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা মোক্ষম সুযোগ হাতে পেয়ে গেল।

সবজির মূল্য বৃদ্ধির জন্য দায়ী করা হল ঘূর্ণিঝড় বুলবুলকে। অথচ বুলবুল কী প্রভাব ফেলেছে- সেটা সকলের কাছে স্পষ্ট। সোজা কথা দাম বাড়াতে হবে- একটা উছিলা তো চাই-ই। তাল বাহানার যেন কোন শেষ নাই।

চোরে না শোনে ধর্মের কাহিনী। অসাধু ব্যবসায়ীরা একেক সময় একেক নিত্যপণ্যর মূল্য বৃদ্ধি করে দেশের সাধারণ মানুষকে জিম্মি করে শত শত কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। যেমন রমজান মাসে ছোলা, চিনি ইত্যাদি। অসহায় মানুষ চেয়ে চেয়ে দেখা ছাড়া কিছুই করার নাই।

ইতোপূর্বে দ্রব্য-সামগ্রির মূল্য বৃদ্ধির লাগাম টানার জন্য সুষ্ঠু বাজার ব্যবস্থাপনা গড়ে তোলার উপর অনেক প্রস্তাব এসেছিল।বিভিন্ন গণমাধ্যমে বাজার বিশেষজ্ঞরা এ নিয়ে তাদের সুচিন্তিত মতামতও তুলে ধরেছিলেন।

ক্ষেতের ফসল দশহাত ঘুরে বাজারে চড়া দামে বিক্রি হয়। ফায়দা লুটে নেয় মধ্যস্বত্বভোগী এবং ফড়িয়া গোষ্ঠী। প্রান্তিক কৃষকের রক্তে-ঘামে বোনা ফসল তাদেরই ধরা ছোঁয়ার বাইরে চলে যায়। ন্যায্যমূল্য পাওয়া থেকেও তারা বঞ্চিত হয়।

একটার পর একটা সংকট (কৃত্রিমও বলা চলে) তৈরি হয়, সরকারি সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলো খানিক নড়েচড়ে বসে। তারপরের গল্প “ক্লান্তি আমর ক্ষমা করো প্রভু”র দশা। কেন অসাধু কারবারিদের সিন্ডিকেট কেউ ভাঙতে পারছে না ! তাদের এতো শক্তির উৎস কোথায় ?
অথচ সুষ্ঠু বাজার ব্যবস্থাপনার উদ্যোগ থাকলে হয়তো এই ধরনের পরিস্থিতি সৃষ্টি হতো না। কিন্ত এই বিষয়গুলো বরাবরই উপেক্ষিত থেকেছে।আমলাতান্ত্রিক জটিলতার ফাঁদে পড়ে কোন গুরুত্বই পায়নি।

পেঁয়াজের ঝাঁজ চোখের পানিই ঝরায়নি, আংগুল দিয়ে দেখিয়েও দিয়েছে চোখে। সুষ্ঠু বাজার ব্যবস্থাপনা কতো জরুরি। এটি এখন সময়ের দাবি। যদি বাজার বিশেষজ্ঞদের মতামত নিয়ে সত্যিকার একটি দক্ষ বাজার ব্যবস্থাপনা গড়ে তোলা যায়, তবে শুধু সাধারণ জনগণই উপকৃত হবে না, এর সাথে জড়িত বিশাল জনগোষ্ঠী বা প্রান্তিক কৃষকেরা ব্যাপক লাভবান হবে।

সম্পাদক, স্বদেশ24


পোস্ট টি বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন

স্পন্সরড নিউজ

সম্পাদক:
আসিফ সিরাজ

প্রকাশক:
এইচ এম শাহীন
চট্টগ্রাম অফিসঃ
এম বি কমপ্লেক্স (৩য় তলা), ৯০ হাই লেভেল রোড, ওয়াসা মোড়, চট্টগ্রাম।

যোগাযোগঃ
বার্তা কক্ষঃ ০১৮১৫৫২৩০২৫
মেইলঃ news.shodesh24@gmail.com
বিজ্ঞাপনঃ ০১৭২৪৯৮৮৩৯৯
মেইলঃ ads.shodesh24@gmail.com
কপিরাইট © ২০১৮ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | স্বদেশ২৪.কম
সেল্ফটেক গ্রুপের একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান।